মৃত নারীর কবরের ভেতর বসে ছিল যুবক !

4205

রংপুরের কাউনিয়ায় এক মৃত নারীর কবরের ভেতর থেকে সফিকুল ইসলাম (২২) নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন স্থানীয়রা।

শুক্রবার (৩ মার্চ) বিকেলে ওই যুবকের নামে ধর্মীয় অ’নুভূতিতে আ’ঘা’ত এবং কবরস্থানে অনধিকার প্রবেশ করে ম’র’দে’হে’র অসম্মান করার অপরাধে মামলা হয়েছে।

এর আগে সকালে উপজেলার হারাগাছ জয়বাংলা বাজার সরকারি পাবলিক কবরস্থান থেকে সফিকুল ইসলামকে আটক করা হয়। কবর থেকে আটক ওই যুবক হারাগাছ পৌর এলাকার ধুমেরকুঠি পশ্চিমপাড়া গ্রামের আবুজারের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার ভোরের দিকে স্থানীয় লোকজন সরকারি কবরস্থানে একজন নারীর কবরের এক পাশের মাটি খুঁড়া দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে স্থানীয় লোজনের সহযোগিতায় সফিকুল ইসলামকে কবরের ভেতর থেকে টেনে বের করেন।

এদিকে কবর থেকে যুবক আটকের খবর ছড়িয়ে পড়লে কবরস্থানে উৎসক লোকজন ভিড় করেন। উৎসক লোকজনকে ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশকে বেগ পেতে হয়। পরে সফিকুলকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

সারাই ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য শফিকুল ইসলাম বলেন, সকালে স্বজনরা কবর জিয়ারত করতে গিয়ে কবরের মাটি খুঁড়া এবং মানুষের গো’ঙা’নো শব্দ পেয়ে ভয়ে সেখান থেকে ফিরে বাড়িতে পরিবারের লোকজনকে জানান।

মৃ’তে’র স্বজনরা কবরস্থানে গিয়ে কবরের ভেতরে ম’র’দে’হে’র পাশে ওই যুবককে বসে থাকতে দেখতে পায়। পরে তারা পুলিশে খবর দেন। 

স্থানীয়রা জানান, আটক ওই যুবক নে’শা’গ্র’স্ত। তিনি মা’নসিকভাবেও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এর আগেও নে’শা’র টাকা না পেয়ে এলাকায় বিশৃঙ্খলা করেছেন। কয়েকবার এ নিয়ে সালিসও হয়েছে।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের হারাগাছ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, এ ঘটনায় ধ’র্মী’য় অ’নুভূতিতে আ’ঘা’ত এবং কবরস্থানে অনধিকার প্রবেশ করে ম’র’দে’হে’র অ’সম্মান করার অপরাধে মামলা হয়েছে।  আটক সফিকুলকে মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। 

শুক্রবার (৩ মার্চ) ভোরে তার কবর দেখতে যান স্বজনরা। এ সময় নতুন কবরের মাটি খোঁড়া ছিল। ভেতর থেকে আসছিল গোঙানোর শব্দ।

স্বজনরা ভয়ে বিষয়টি স্থানীয় লোকজনসহ পুলিশকে জানায়। পরে পুলিশ এসে স্থানীয়দের সহযোগিতায় কবরের মাটি সরিয়ে দেখতে পায়, ভেতরে লা’শ কোলে নিয়ে বসে আছে এক যুবক।

রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার জয়বাংলা বাজার সরকারি পাবলিক কবরস্থানে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সফিকুল ইসলাম (২২) নামে ওই যুবককে আটক করেছে পুলিশ।  

সফিকুল ইসলাম উপজেলার হারাগাছ পৌর এলাকার ধুমেরকুঠি পশ্চিমপাড়া গ্রামের আবুজারের ছেলে। এ ঘটনায় মৃ’তের ছেলে আজহারুল ইসলাম (৫৫) বাদী হয়ে মামলা করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (১ মার্চ) সারাই ইউনিয়নের ধুমেরকুঠি চাদমিয়া পাড়া গ্রামের মৃত আছিমুল্যা হাগুড়ার স্ত্রী সবিরন নেছা (৮৬) বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান।

বৃহস্পতিবার (২ মার্চ) দুপুরে জানাজা শেষে তাকে জয়বাংলা বাজার সরকারি কবরস্থানে দাফন করা হয়। শুক্রবার (৩ মার্চ) সকালে স্বজনরা কবর জিয়ারতে গিয়ে দেখেন, কবরের মাটি খোঁড়া এবং মানুষের গোঙানোর শব্দ।

ভয়ে সেখান দূরে গিয়ে পুলিশসহ পরিবারের অন্য সদস্য ও স্থানীয় লোকজনকে জানান বিষয়টি। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় কবরের ভেতরে লা’শ কোলে নিয়ে বসে থাকা ওই যুবককে আটক করে।

মৃ’তে’র ছেলে আজহারুল ইসলাম বলেন, এ যুবক আমার মায়ের কবরে কেন ঢুকেছিল, এটা বুঝতে পারছি না। এ ঘটনায় মামলা করেছি।

সারাই ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য শফিকুল ইসলাম বলেন, আটক ওই যুবক নে’শা’গ্র’স্ত। তিনি মানসিকভাবেও অসুস্থ। এর আগেও নে’শা’র টাকা না পেয়ে এলাকায় বিশৃঙ্খলা করেছে। কয়েকবার এ নিয়ে সালিশও হয়েছে।  

রংপুর মেট্রোপলিটন হারাগাছ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, আটক যুবক মানসিক রোগী।

তবে এ ঘটনায় ধ’র্মানুভূতিতে আ’ঘা’ত এবং কবরস্থানে অনাধিকার প্রবেশ করে ম’র’দে’হে’র অ’সম্মান করার অ’পরাধে মামলা হয়েছে। ওই মামলায় গ্রে’ফতার দেখিয়ে আটক যুবককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে কবর থেকে যুবক আটকের খবর ছড়িয়ে পড়লে ঘটনাস্থলে উৎসুক জনতা ভিড় জমান।