প্রেসিডেন্ট হয়েও নিয়মিত নাতিদের কুরআন শিক্ষা দেন এরদোগান !

1230

নাতিদের কুরআন শিক্ষা- অনেকেই হয়ত জানেন না তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ৩০ পারা কুরআনের হাফেজ। শুধু তাই নয়, বর্তমানে পৃথিবীতে তিনি একমাত্র প্রেসিডেন্ট যিনি একই সঙ্গে প্রেসিডেন্ট এবং পবিত্র কুরআনে হাফেজ।

পার্লামেন্টে মাঝে মাঝেই তিনি নামাজের ইমামতি করেন এবং তুরস্কে অনেক মসজিদে তিনি ইমামতি করেছেন। প্রেসিডেন্টের উদ্যোগে প্রতি বছর কুরআন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় এবং এতে বিশ্বের অনেক হাফেজই অংশগ্রহণ করে থাকেন।

পবিত্র হজও পালন করেছেন তিনি। তার সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সাড়া ফেলেছে। এবার তুরস্কের বহুল প্রচারিত পত্রিকা ইয়েনী সাফাক শুক্রবার এরদোগান এবং তার নাতীর একটি ছবি নিয়ে ছাপিয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে এই সামান্য অবসরের সময়ে এরদোগান তার নাতীকে কুরআন শিখাচ্ছেন।

ইয়েনী সাফাক পত্রিকার প্রতিবেদন লিখেছে, এরদোগানের মেয়ের জামাই ও তুরস্কের জ্বালানী এবং খনিজ সম্পদমন্ত্রী বেরাক আলবাইরাকের ছেলে আহমেদ আকিফ আলবাইরাকের প্রিয় সময় তার নানার সাথে কাটানো সময়গুলো !

গভীর রাতে কিংবা একদম ভোরে হয়তো কিছুটা সময় মিলে। যে সময়টা উনি পরিবারের সাথে কাটান। সময়ে পেলেই এরদোগান তার নাতীকে কুরআন শিখাচ্ছেন।

১০০ দেশকে কুরআন প্রতিযোগিতায় আহ্বান জানিয়েছে মিসর…

২৭তম আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার বিশ্বের একশ’রও বেশি দেশকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে মিসরের আওকাফ মন্ত্রণালয়। সংখ্যালঘু মুসলিম দেশসহ মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, আফ্রিকা ও ল্যাটির আমেরিকার শতাধিক দেশের প্রতিনিধিদেরকে কুরআন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানিয়েছে দেশটি।

২০২০ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে আন্তর্জাতিক এ প্রতিযোগিতা। ৫ দিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতা শেষ হবে ১২ ফেব্রুয়ারি।

মধ্যপ্রাচ্যের আরব দেশগুলোসহ শুধু আফ্রিকা মহাদেশ থেকেই অংশগ্রহণ করবে ৪০টিরও বেশি দেশের প্রতিনিধিরা। এছাড়া রাশিয়া, বলকানস, সার্বিয়া, বসনিয়া, বুলগেরিয়া এবং গ্রিসকে কুরআন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে আহ্বান জানানো হয়েছে।

ইউরোপ এবং ল্যাতিন আমেরিকার দেশগুলোকেও এ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণে আমন্ত্রণ জানিয়েছে মিসরের আওকাফ মন্ত্রণালয়। মুসলিম সংখ্যালঘু দেশগুলোকেও প্রতিনিধি পাঠাতে আমন্ত্রণ জানিয়েছে দেশটি।

উল্লেখ্য যে, গত বছর মার্চ মাসে ২৬তম আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সে প্রতিযোগিতায় বিশ্বের ৬০ দেশের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে শুধু আফ্রিকা থেকেই ৩০ দেশ অংশগ্রহণ করে। এ প্রতিযোগিতার প্রাইজমানি ছিল ১০ লাখ পাউন্ড।