জার্মানিতে প্রতি সপ্তাহে একদিন বিনামূল্যে কুরআন বিতরণ করেন এই তরুণী

2038

বিনামূল্যে কুরআন বিতরণ- ইউরোপ মহাদেশের একটি ঐতিহাসিক শহর জার্মানির রাজধানী বার্লিন। বার্লিনের একটি হোটেলের সামনে অনেক দিন ধরে বিনামূুল্যে কুরআন বিতরণ করছিলেন একজন মুসলিম তরুণী।

জার্মানির কয়েকটি ফেসবুুক পেজে এ ছবিটি শেয়ার করার পর ভাইরাল হয়েছিলো ২০১২ সালে। তরুণীর নাম জোহরা।

তিনি জার্মানি ভাষায় কুরআন অনুবাদ করে প্রকাশ করেন। তারপর সেটি বিনামূল্যে বিতরণ শুরু করেন।

জামানির ইউনিসিও নামের একটি ফেসবুক পেজ জানায়। তিনি প্রতি সপ্তাহের একদিন কুরআন বিতরণ করতে জার্মানির এ হোটেলটির সামনে আসেন। বিনামূল্যে কুরআন বিতরণ করেন।

সম্প্রতি, জার্মানির ১৬টি রাজ্যের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে তথ্য নিয়েছে “মেডিয়েনডিনস্ট ইন্টেগ্রাৎসিয়ন৷” তারা দেখেছে, এ দেশের ৮০০ স্কুলে এ মুহূর্তে মোট ৫৪ হাজার শিক্ষার্থী স্কুলে ইসলাম ধর্ম পড়ছে৷

দু’বছর আগে যেখানে ৪২ হাজার শিক্ষার্থী এ সুযোগ পেত, সেই তুলনায় ১২ হাজার অন্তত বেড়েছে বলে সন্তোষ প্রকাশ করেছে ‘মেডিয়েনডিনস্ট ইন্টেগ্রাৎসিয়ন৷’ তবে তারা মনে করে, আরো অন্তত দশগুণ শিক্ষার্থী আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও স্কুলে ইসলাম ধর্ম পড়ার সুযোগ পাচ্ছে না৷

প্রথমত, ইসলাম ধর্ম পড়ানোর মতো শিক্ষক প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম৷ আবার কোনো শ্রেণিতে অন্তত ১২ জন শিক্ষার্থী ধর্মীয় এ বিষয়টি পড়তে আগ্রহী না হলে এবং সেই আগ্রহের কথা তারা লিখিতভাবে না জানালে কোনো স্কুলের এ বিষয়ে উদ্যোগী হওয়ার সুযোগও নেই৷

ওয়াজ মাহফিলে এসে ইসলাম গ্রহণ করলেন মনপুরার জুয়েল দাস !

২৪ বছরের যুবক জুয়েল দাস। সনাতন ধর্ম থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে রোববার রাতে ওয়াজ মাহফিলে মুফতি আমির হামজার হাতে হাত রেখে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর নতুন নাম রেখেছেন আমির হামজা।

ভোলার মনপুরা উপজেলার মনপুরা ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ডের চর কলাতলি গ্রামের পরিমল দাস ও প্রভাতি দাসের ছেলে জুয়েল দাস।

স্থানীয় মেহেদি হাসান নাহিদ জানান, জুয়েল দাস একটি মাছের আড়তে কাজ করতেন। অনেক দিন ধরেই তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণে আগ্রহ প্রকাশ করে আসছিলেন। ইসলাম ধর্ম গ্রহণের বিষয়টি তার পরিবার ও স্থানীয়দের কাছেও বলে আসছিলেন তিনি।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে রোববার রামনেওয়াজ বাজার ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ওয়াজ মাহফিলের শেষ দিন রাতে স্বেচ্ছায় মুফতি আমির হামজার হাতে হাত রেখে কালেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

এ বিষয়ে মনপুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমানত উল্লাহ আলমগীর বলেন, ‘জুয়েল দাস মাহফিলে এসে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।