চোখের অঞ্জলি সমস্যা, কী করবেন

1508

চোখের অঞ্জলি সমস্যা- তীব্র গরম আর ঋতু পরিবর্তনের এই সময়ে অনেকেই আক্রান্ত হচ্ছেন চোখের অঞ্জলিতে। ডাক্তারি ভাষায় এটির নাম কালেজিয়ান। এই সমস্যা সাধারণত অপরিষ্কার হাতে চোখ ধরা অথবা চোখের পাতার কোনও গ্ল্যান্ডে তেল জমে বন্ধ হয়ে যাবার কারণে হয়ে থাকে।

সমস্যাটি খুব বড় কোনও সমস্যা নয়। কিন্তু এর থেকে চোখে প্রচণ্ড ব্যথা হওয়া বা পুঁজ পড়ার যন্ত্রণাও ভোগ করতে হয়।

চলুন জেনে নেই চোখের অঞ্জলি ঠেকানোর বেশকিছু ঘরোয়া উপায়-

চোখে গরম ভাপ নেয়া-

প্রাথমিকভাবে চোখে গরম ভাপ নিলে এই যন্ত্রণা থেকে দ্রুত মুক্তি পেতে পারেন। একটি নরম পরিষ্কার কাপড় গরম পানিতে ভিজিয়ে ভালো করে চিপে নিন। এই গরম ভেজা কাপড়টি আক্রান্ত চোখের ওপরে আলতো চেপে ধরে রাখুন ৫ মিনিট। প্রতিদিন ৩-৪ বার করুন ঠিক না হওয়া পর্যন্ত।

ক্যাস্টর অয়েল-

আগে চোখে গরম পানি দিয়ে ভাপ দিয়ে নিন। তারপর তুলাতে ক্যাস্টর অয়েল লাগিয়ে নিয়ে চোখে লাগান। প্রতিদিন দুইবার এরকম করুন।

পেয়ারা পাতা-

৫-৬ টি পেয়ারা পাতা ভালো করে ধুয়ে নিন। ওভেনে বা একটি গরম পানির পাত্রের ওপরে বাটি রেখে তাতে পাতা রেখে গরম করে নিন পেয়ারা পাতাগুলো। এরপর গরম পেয়ারা পাতাগুলো একটি পরিষ্কার নরম কাপড়ে রেখে মুড়ে নিন।

পাতাসহ এই কাপড় আক্রান্ত স্থানে আলতো চেপে ধরে রাখুন। দিনে দুই বার করুন ঠিক হওয়া পর্যন্ত। দ্রুত সেরে যাবে।

গ্রিন টি-

আক্রান্ত চোখে কুসুম গরম কাপড়ের পরিবর্তে কুসুম গরম গ্রিন টি’য়ের ব্যাগ দিয়ে ভাপ দিতে পারেন। এতে থাকা প্রদাহরোধী উপাদান ব্যথা ও জ্বলুনি কমাতে সাহায্য করবে।

ধনিয়া-

এক টেবিল-চামচ ধনিয়া পানিতে সিদ্ধ করুন। তারপর ঠাণ্ডা হলে ধনিয়াগুলো ফেলে শুধু পানি দিয়ে আক্রান্ত চোখটি ধুতে হবে। ভালো উপকার পেতে দিনে দু’তিন বার এভাবে চোখ ধুতে পারেন।

অ্যালোভেরা-

একটি অ্যলোভেরার পাতা কেটে ভেতরের জেলিজাতীয় উপাদানটি বের করে আক্রান্ত চোখে মাখিয়ে নিতে হবে। ১০ মিনিট রেখে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

নিয়মিত এলাচ খেলে কমতে পারে যেসব অসুখ

বিভিন্ন খাবারে এলাচ মশলা হিসেবে ব্যবহার হলেও এলাচের রয়েছে বহু অসুখ নিরাময়ের গুণ। আমাদের আজকের এই প্রতিবেদন থেকে জেনে নিন এলাচের সেই গুণাগুণ সম্পর্কে বিস্তারিত-

১। সর্দি-কাশি থেকে মুক্তি দেয়। চায়ের সঙ্গে মধু মেশানো এলাচ খেলে কমতে পারে সর্দি-কাশির উপদ্রব।

২। নিয়মিত এলাচ খেলে শরীরে র ক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক থাকে।

৩। এলাচ ওজন কমাতে সাহায্য করে।

৪। এলাচের মধ্যে থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা ত্বকে ছাপ, বলিরেখা পড়তে বাধা দেয়।

৫। মুখের দুর্গন্ধ হাত থেকে বাঁচতে মুখে রাখুন দু-তিনটে এলাচ।

৬। নিয়মিত এলাচ খেলে কমতে পারে ক্যানসারের সম্ভবনা।

৭। মুখের ঘা, মাড়ির ক্ষত ইত্যাদিতে এলাচ অব্যর্থ ওষুধের কাজ করে।