যেসব খাবার খালি পেটে খাওয়া উচিত

1469

খালি পেটে যেসব খাবার খাওয়া- খাবার শুধু খেলেই হয় না, তার জন্য নিয়মও মানা উচিৎ। কিছু খাবার আছে যেগুলো ভরা পেটের চেয়ে খালি পেটে খেলেই উপকার বেশি।

খালি পেটে কিছু খাবার খেলে যে উপকার হয় সেটি প্রমাণ মিলেছে গবেষণায়ও।

১. প্রতিদিন সকালে খালি পেটে হালকা গরম পানির সঙ্গে লেবু মিশিয়ে খেতে পারেন।

লেবু শরীর ডিটক্সিফিকেশন করে, সেই সঙ্গে ওজন কমাতে ভূমিকা রাখে। লেবু পানি শরীরকে আরও অ্যাসিডিক করে এবং বিপাকক্রিয়া বাড়িয়ে দেয়।

২. অ্যালোভেরায় থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান বিপাকিক্রিয়া বাড়ায় এবং শরীর থেকে বর্জ্য বের করতে সাহায্য করে।

ভাল ফল পেতে একটা অ্যালোভেরা পাতা থেকে জেল করে তাতে এক চামচ লেবুর রস যোগ করুন। এরপর তাতে সামান্য গরম পানি দিয়ে পান করুন।

৩. দারুচিনিতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। প্রতিদিন সকালে এক কাপ হালকা গরম পানির মধ্যে দারুচিনির গুড়া মিশিয়ে খেলে দারুণ উপকার পাওয়া যায়।

দারুচিনিতে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরী উপাদান রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। সেই সঙ্গে রক্তে শর্করার পরিমাণও নিয়ন্ত্রণে রাখে।

৪. খালি পেটে এক কাপ গ্রিন টি খেতে পারেন মধু মিশিয়ে। গ্রিন টি তে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বিপাকক্রিয়া বাড়াতে সাহায্য করে।

এছাড়া মধুতেও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকায় এই মিশ্রণটি ফ্যাট ঝরাতে সাহায্য করে। বাড়তি উপকার পেতে এ মিশ্রণের সঙ্গে লেবুর রসও যোগ করতে পারেন।

৫. খালি পেটে খাওয়ার জন্য পানি দিয়ে কিছু ওটস সিদ্ধ করতে পারেন। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, ওটমিল রক্তপ্র্রবাহ ঠিক রাখতে সাহায্য করে এবং বাড়তি ওজন কমায়।

৬. খালি পেটে গাজর, শশা, সেলারি দিয়ে তৈরি জুস খেতে পারেন। এগুলোয় থাকা পুষ্টি উপাদান শরীরের বাড়তি মেদ ঝরাতে ভূমিকা রাখে।

৭. সকালে খালি পেটে এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে এক চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার ও সামান্য বেকিং সোডা মিশিয়ে খেতে পারেন। এটিও ওজন কমাতে সাহায্য করবে।

যে ভাবে কমবে বুক জ্বা লা

অ্যাসিড রিফ্লাক্সের সমস্যায় সাধারণত অম্বল আর বুক জ্বা লা দেখা দেয়। তার মানে, যখন পাকস্থলীর অ্যাসিড শরীরের উপরিভাগে ইসোফোগাস অংশে চলে আসে তখনই অ্যাসিড রিফ্লাক্সের সমস্যা দেখা দেয়। সাধারণত অ্যাসিড রিফ্লাক্সের কোনও লক্ষণ চট করে দেখা যায় না।

তবে স্বাস্থ্য বিশারদ লিউক কুটিনহো এই অ্যাসিড সমস্যা থেকে নিস্তারের চটজলদি উপায় জানিয়েছেন নিজের ইনস্টাগ্রাম পোস্টে। সেটা তুলে ধরা হলো-

এই অম্বল, বুক জ্বালাপোড়া সমস্যায় প্রয়োজন, রান্নাঘরের কিছু মশলাপাতি। তাতেই দূর হবে অম্বল আর বুক জ্বালা।

উপকরণ: প্রয়োজন কিছুটা জোয়ানের দানা, মৌরির দানা এবং খানিকটা উষ্ণ পানি। হজমের সহায়ক হিসাবে জোয়ান ও মৌরি দীর্ঘদিন ধরেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে। জোয়ান ও মৌরি হজমের সমস্যায় উপকারী।

জোয়ানের মধ্য বেশ ভালো পরিমাণে থাইমল থাকে। এই থাইমলের কারণেই স্টমাক থেকে গ্যাসট্রিক রস নিঃসৃত হয়, যা হজমে সাহায্য করে। আমাদের অনেক প্রজন্ম আগে থেকেই হজমের প্রয়োজনে এই কারণে জোয়ান ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

মৌরিকে চিবিয়েও খেতে পারেন আবার এক কাপ গরম জলে ফুটিয়ে ছেঁকেও খেতে পারেন। মৌরিতে থাকে অ্যানথোল ও ইস্ট্রোগোল যার মধ্যে অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান রয়েছে।

লিউক কুটিনহো বলেছেন, মৌরি ও জোয়ান এক সঙ্গে গরম জলে ফোটান। মিশ্রনটিকে ফুটিয়ে অর্ধেক করে ফেলুন। এ বার তা ঠাণ্ডা করে খেলেই অম্বল ও বুক জ্বালার সমস্যা থেকে রেহাই মিলবে।