ওঠা হলো না স্বপ্নের ঘরে, পুরো পরিবার নিয়ে যেতে হলো কবরে

4937

সিত্রাংয়ের তাণ্ডবে গাছ উপড়ে পড়ে একই পরিবারের তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ওই পরিবারের চলছে শোকের মাতম।

নিহতদের শেষবারের মতো একবার দেখার জন্য দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসছেন আত্মীয়-স্বজনরা।

সোমবার (২৪ অক্টোবর) রাতে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার হেসাখাল ইউনিয়নের খামারপাড়া গ্রামে ঘরের ওপর গাছ পড়ে স্বামী-স্ত্রী ও তাদের মেয়ের মৃত্যু হয়।

নিহতরা হলেন- উপজেলার খামারপাড়া গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে নেজাম হোসেন, তার স্ত্রী শারমিন আক্তার সাথী এবং তাদের মেয়ে নুসরাত জাহান লিজা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফারুক হোসেন বলেন, সোমবার রাতে খাবার খেয়ে ঘুমাতে গিয়েছিলেন মালয়েশিয়া থেকে ছুটিতে আসা নেজাম,

তার স্ত্রী সাথী ও মেয়ে নুসরাত। রাত ১০টার দিকে হঠাৎ ঝড়ে কড়ই গাছ উপড়ে তাদের ঘরের ওপর পড়ে। এতে চাপা পড়ে তারা গুরুতর আহত হন।

খবর পেয়ে স্থানীয়রা গিয়ে করাত দিয়ে গাছটি কেটে তাদের উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তিনজনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে হেসাখাল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইকবাল বাহার মজুমদার বলেন, নিহত নেজাম ২ হাজার ২০০ বর্গফুটের একটি বিল্ডিং নির্মাণ করেছিলেন।

আগামী শুক্রবার ওই ঘরে তাদের ওঠার কথা ছিল। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে সেই ঘরে ওঠার আগেই পরিবার নিয়ে দুনিয়া ছাড়লেন। এটি অত্যন্ত দুঃখজনক। আল্লাহ যেন তাদের জান্নাত নছিব করেন এই দোয়াই রইলো।