আর্জেন্টিনার তৃতীয় গোল বাতিল করা উচিত ছিল : ফরাসি গণমাধ্যম

1935

ফরাসি গণমাধ্যম এল একুইপের দাবি, ‘অতিরিক্ত আবেগী হয়ে গোলের আগে মাঠে ঢুকে পড়েন দুই আর্জেন্টাইন ফুটবলার। নিয়ম অনুযায়ী গোলটি বাতিল হওয়ার কথা।’

ফিফার নিয়ম অনুযায়ী, কোনও গোল হওয়ার পর রেফারি যদি লক্ষ্য করেন গোলের আগেই অতিরিক্ত খেলোয়াড় মাঠে তাহলে গোল বাতিল করে পুনরায় খেলা শুরু করতে হবে।

অতিরিক্ত খেলোয়াড় মাঠের যেখানে ছিলেন সেখান থেকে ফ্রি-কিকের মাধ্যমে খেলা শুরু হবে।

গোলটি ভারে চেক হলেও অতিরিক্ত খেলোয়াড়ের মাঠে ঢোকার বিষয়টি চেক করা হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করতে পারেনি এল একুইপ।

ফ্রান্সের বিপক্ষে কাতার বিশ্বকাপের ‍রুদ্ধশ্বাস ফাইনালে নির্ধারিত সময়ের খেলা ২-২ ড্র হয়।

অতিরিক্ত সময়ে খেলা গড়ালে ১০৮ মিনিট গোল করে ফের আর্জেন্টিনাকে এগিয়ে নেন লিওনেল মেসি। দুরন্ত আক্রমণে গোল দিলেন মেসি। 

লাউতারো মার্টিনেজের শট দারুণ ভাবে বাঁচিয়ে দিলেও শেষ রক্ষা করতে পারলেন না লরিস। ফিরতি বল মেসির হাঁটুতে লেগে জালে ঢুকে গেল হয়। ফ্রান্স অফসাইডের আবেদন করেছিল।

কিন্তু ভার-এর চিত্রে দেখা গেল, ফ্রান্সের ডিফেন্ডার কিছুটা ভেতরে ঢুকে ছিলেন। ফলে গোলের সিদ্ধান্ত বহাল থাকে।

তবে ফরাসি মিডিয়ার দাবি ওই গোলটি বাতিল করা উচিত ছিল। কারণ কী? গোলের আগেই নাকি আবেগী হয়ে মাঠে ঢুকে পড়েছিলেন বেঞ্চের দুই খেলোয়াড়!