আমি এখন নিঃস্ব- অভিনেতা কালা আজিজ

1880

আমি এখন নিঃস্ব- ঢাকাই সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির এখন মন্দা সময়। নেই কোন ছবি, নেই দর্শক। অনেক সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা থাকলেও সেটা ক্যামেরা পর্যন্ত যায় হাতে গুনা কয়েকটা।

এমন মন্দা সময়ে শুধু মাত্র নায়ক নায়িকাই ভাল আছেন এছাড়া বাকি সবারই অবস্থা করুণ। অনেক নির্মাতা কিংবা পার্শ চরিত্রে অভিনয় করা শিল্পী সহ অনেক কলাকুশলী যারা কিনা অতিশয় কষ্টে দিনাতিপাত করছে।

একটা কাজের আশায় সারাদিন এফডিসিতে ঘুরাঘুরি করে এমন অনেকেই রয়েছে। কিন্তু দিন শেষে ফলাফল শুণ্য। অনেক শিল্পীই রয়েছে যারা এখনও দিন আনে দিন খায় কিংবা অনেকে খেতেই পান না।

বাসায় শুয়ে বসে দিন কাটাচ্ছেন। অনেকে অসুস্থ হয়ে বাসায় পড়ে আছেন। বাংলা চলচ্চিত্রের অত্যন্ত পরিচিত একটি মুখ আজিজ। যাকে সবাই কালা আজিজ নামেই চেনে।

বাংলা সিনেমাতে ভিলেনের সহযোগী হয়ে তাকে কানপরা দিতে দিতে ওস্তাদ এই আজিজ। এমন অসংখ্য চরিত্রে দেখা গিয়েছে তাকে। দীর্ঘ অনেক দিন ধরেই কাজ করছেন চলচ্চিত্রে। সেই সুবাদে ঢাকাই সিনেমার অনেকের সাথে কাজ করার সুযোগ হয়েছে তার। তবে তার অভিনয়ের পাল্লাটা বেশি জমে উঠতো ভিলেন ডিপজলের সাথে। তার সহযোগী হয়ে তাকে নানা রকম কু পরামর্শ দেওয়া।

নায়ক মান্নার সাথে তার সখ্যতা ছিল বেশ। কিন্তু অনেকদিন ধরেই ভাল নেই তিনি। তার স্ত্রী ব্রেইন স্ট্রোক করে মারা যাওয়ার পর থেকে তিনি একটু একটু করে অসুস্থ হয়ে পড়েন।

স্ত্রীর চিকিৎসার পেছনে অনেক টাকা খরচ করেছিলেন কিন্তু তাও বাঁচাতে পারেন নি। এখন নিজেই অসুস্থ হয়ে আছেন। কিন্তু ঠিকমত চিকিৎসা করাতে পারছেন না। আজিজ ডায়াবেটিসের রোগী।

এছাড়াও তার রয়েছে কিডনিতে সমস্যা। যার কারণে গেল অনেক দিন ধরে তার দুই পায়ে পানি চলে এসেছে। পা ফুলে গিয়েছে। ঠিকমত চলাফেরা করতে পারছেন না। আর কাজও করতে পারছেন না। কালা আজিজ বলেন, আমার স্ত্রী মারা যাওয়ার পর থেকেই আমি নিঃস্ব হয়ে যাই। অসুস্থ হয়ে পড়ি।

টাকা পয়সা তো নেই ই। কিছুদিন পর ডাক্তারের কাছে যেতে হয় ডায়াবেটিসের চেকাপ করতে। কিডনির সমস্যার কারণে পায়ে পানি চলে এসেছে। চলতে পারি না। ডান পায়ে একটু কম এখন, তবে বাম পায়ে বেশি। এখন কিছুটা ভাল আছি। কিন্তু পুরোপুরি চিকিৎসা করাতে পারছি না। আর কাজ তো এখন পাই না তেমন।

সুত্র-বি ডি ২৪ লাইভ।

বিয়ের এক মাসের মাথায় নুসরাতের মন খারাপ !

গত ১৯ জুন সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন নিখিল-নুসরাত। শেষমেশ গত ৪ জুলাই কলকাতার একটি অভিজাত হোটেলে রিসেপশনের আয়োজন করেছিলেন নবদম্পতি। সেখানে উপস্থিত ছিলেন বহু হেভিওয়েট তারকা।

বিয়ের পর থেকে শ্বশুর বাড়িতেই রয়েছেন নুসরাত। পাকা গৃহিণীর মতো সুখে ঘরকন্না করছেন। নুসরাত রান্না করতে খুব ভালবাসেন। মাঝে মধ্যেই তাই নিজের হাতে রেঁধে খাওয়াচ্ছেন নতুন পরিবারের সদস্যদের। তবে নতুন নিখিল-নুসরাতের নতুন ফ্ল্যাটের কাজও চলছে জোরকদমে। সেই কাজ শেষ হলেই নতুন করে সংসার পাতবেন দুই লভবার্ডস। সব মিলিয়ে নতুন সংসার চুটিয়ে এনজয় করছেন এই তারকা দম্পতি।

তবে তারমধ্যেও কখনও কখনও মন খারাপের মেঘ জমা হচ্ছে বুকের মধ্যে। তার কারণ একটা। সমস্ত মেয়েকেই এই পর্বটার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। নিজের জায়গা, নিজের পরিবার, নিজের শিকড় ছেড়ে চলে যাওয়াটা সব সময়ই কষ্টের।

এই কষ্টটাই এখন কুড়ে কুড়ে খাচ্ছে তাকে। মিস করছেন পরিবার আর কাছের মানুষদের। মন ভাল নেই তার।