হবিগঞ্জের তারকা হামজা ইংল্যান্ডে ব’র্ণ’বা’দে’র শিকার !

74

ইংল্যান্ডে ব’র্ণ’বা’দে’র শিকার হবিগঞ্জের তারকা- ফুটবলারদের ব’র্ণ’বা’দে’র শি’কা’র হওয়ার ঘটনা যেন বেড়েই চলেছে। লুকাকু-কিন-পগবাদের পরে এবার বর্ণবাদের শিকার হলেন লেস্টার সিটির বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মিডফিল্ডার হামজা চৌধুরী। অ্যানফিল্ডে লিভারপুলের বিপক্ষে ম্যাচের পর তাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব’র্ণ’বা’দী মন্তব্য করেছেন কয়েকজন।

প্রিমিয়ার লিগে লিভারপুলের কাছে ২-১ গোলে হেরে যাওয়া ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে সালাহ’কে কড়া ট্যাকল করেন হামজা। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন মিশরীয় ফরোয়ার্ড। বাঁ পায়ের গোড়ালিতে বেশ গু’রু’ত’র আ’ঘা’ত পেয়েছেন তিনি। হামজাকে অবশ্য হলুদ কার্ড দেখান রেফারি।

অ্যানফিল্ডে হামজাকে উদ্দেশ করে স্টেডিয়ামেই বর্ণবাদী মন্তব্য করেন বহু সমর্থক। এরপর এই বাংলাদেশি-গ্রানাডিয়ান বংশোদ্ভুত মিডফিল্ডারকে টুইটার, ফেসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব’র্ণ’বা’দী আ’ক্র’ম’ণে’র শি’কা’র হতে হয়। তাকে উদ্দেশ করে ব্যবহারকারীরা অনেক পোস্টে ‘বানর’, ‘এশিয়ান ব্ল্যাক’, ‘নোংরা জা’নো’য়া’র’, ‘গুহায় ফিরে যাও’ এমন সব বর্ণবাদী শব্দ ব্যবহার করেছেন।

তবে এই কঠিন সময়ে ক্লাবকে পাশে পাচ্ছেন হামজা। ব’র্ণ’বা’দী মন্তব্যের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থার পথে হাঁটছে লেস্টার। সালাহকে ট্যাকল করায় হামজাকে নিয়ে সমালোচনা করেছেন লিভারপুল বস ক্লপ। দলের সেরা তারকাকে আ’ঘা’ত করায় ক্ষু’ব্ধ ক্লপ বলেন, এটা কেমন ধরনের চ্যা’লে’ঞ্জ আমি বুঝতে পারছি না। এটা অত্যন্ত বি’প’জ্জ’ন’ক। এমন পরিস্থিতে তাকে (হামজা) মাথা ঠাণ্ডা রাখতে হবে। এটাই প্রথম নয়। সে ভালো খেলোয়াড়, উন্নতিও করছে। কিন্তু এ ধরনের চ্যা’লে’ঞ্জ, মানা যায় না।

রোহিতের স্ত্রী ছিলেন কোহলির প্রেমিকা !

বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মা, দুজনই ভারতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম সুপারস্টার। তাদের ছাড়া ভারতীয় দল যেন কল্পনাই করা যায় না। কিন্তু বিরাট কোহলি আর রোহিত শর্মার মাঝে সম্পর্ক একেবারেই ভালো নয়। বাইরে যতই ভাব-ভালোবাসা দেখা যাক না কেন, ভেতরে ভেতরে দুজনে একে অপরকে শ’ত্রু’ই মনে করেন। ভারতীয় গণমাধ্যমে এবার উঠে এল ভিন্ন এক খবর।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এশিয়ান এজের খবরের বলা হয়েছে, কোহলি ও রোহিতের স্ত্রীর মাঝে অতীতে সম্পর্ক ছিল! দলের সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মার স্ত্রী ঋতিকা সাজদেহকে নিয়ে ২০১৩ সালে সিনেমা দেখতে গিয়েছিলেন কোহলি। শুধু এই প্রতিবেদন দিয়েই দায়িত্ব শেষ করেনি পত্রিকাটি, প্রমাণস্বরূপ একটি ছবিও যুক্ত করেছে। ওই ছবিতে কোহলির সঙ্গে ক্যামেরাবন্দি মেয়েটির চেহারার সঙ্গে ঋতিকার চেহারারে বেশ মিল রয়েছে। বলা হচ্ছে, পুরনো সম্পর্কের কারণেই কি নতুন করে দুই তারকা ক্রিকেটারের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হলো?

২০১০ সালে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে কোহলি-ঋতিকার পরিচয় হয়েছিল। এরপর ২০১৩ সালে ভারতের জিম্বাবুয়ে সফরের পর কোহলি ছুটি কাটাতে মুম্বাই গেলে সেখানে তাকে এক তরুণীর সাথে সময় কাটাতে দেখা যায়। ওই তরুণীই বর্তমানে রোহিতের স্ত্রী ঋতিকা সাজদেহ।

ঋতিকা সে সময় স্পোর্টস ম্যানেজার হিসেবে কাজ করতেন। তাদের ওই সময় কাটানোর ছবি সে সময়কার শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যম ডিএনএ নিউজে প্রকাশিত হয়েছিল।

ভারতের ক্রিকেটাঙ্গনে প’র’কী’য়া’র ঘটনা বিরল কোনো ব্যাপার নয়। এর আগে উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান দিনেশ কার্তিকের স্ত্রী নিকিতার সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছিলেন তারই সতীর্থ মুরালি বিজয়। একপর্যায় তুমুল জমে ওঠে প্রেম। যার পরিণতি গড়ায় বিয়েতে। দিনেশকে ছেড়ে মুরালি বিজয়কে বিয়ে করেন নিকিতা। যদিও দিনেশ কার্তিক এরপর আবার বিয়ে করেছেন, তবে মুরালি বিজয়ের সঙ্গে তার ঘনিষ্ট বন্ধুত্ব চিরদিনের জন্য ভেঙে গেছে। এদিকে কোহলি-রোহিত দুজনেই এখন বিবাহিত। আনুশকা-কোহলি জুটি তো অনেকের কাছেই আইডল।