শাশুড়িকে ধ র্ষ ণের পর স্ত্রীকে তালাকের হু’মকি

103

ভারতের মহারাষ্ট্র প্রদেশে ২৭ বছর বয়সী এক ব্যক্তি তার শাশুড়িকে ধ র্ষ ণ করেছেন। সেখানেই শেষ নয় এরপর শাশুড়িকে হু ম কি দিয়েছেন যদি কোনো ধরনের মামলা কিংবা আইনের আশ্রয় তিনি নেন তাহলে তার মেয়ে অর্থাৎ নিজের স্ত্রীকে তালাক দেবেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে এই খবর জানিয়ে বলা হয়েছে, শাশুড়িকে ধ র্ষ ণে র অভিযোগে ওই ব্যক্তিকে গত শুক্রবার আটক করেছে পুলিশ। মহারাষ্ট্রের আকোলা জেলার বালাপুর নামক এলাকার ঘটনা এটি। অভিযুক্ত ব্যক্তি প্রদেশটির পুরনো শহর কান্দিকালের বাসিন্দা।

ইন্ডিয়া ট্যুডের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, গত ৩১ জুলাই মেয়ে জামাইয়ের কাছে ধ র্ষ ণের শিকার হন ওই নারী। তার নাম পরিচয় প্রকাশ করা যাচ্ছে না। আর যেখানে ঘটনাটি ঘটেছে সেটা স্থানীয় চন্দ্রায়নগুট্টু পুলিশ স্টেশনের অদূরে।

আনুমানিক এক বছর আগে ওই নারীর মেয়ের সঙ্গে অভিযুক্ত ধ র্ষ কের বিয়ে হয়। গত বুধবার রাতে অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি জোর করে তার শাশুড়িকে একটি নির্জন স্থানে নিয়ে যাওয়ার পর ধ র্ষ ণ করে। তারপর ধ র্ষি ত নারীকে তার বাড়িতে ফেলে রেখে আসে।

অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি ধ র্ষ ণে র পর তার শাশুড়িকে হু ম কি দেয় যদি সে বিষয়টি কাউকে জানায় কিংবা মামলা করে তাহলে সে তার স্ত্রীকে তৎক্ষণাৎ তালাক দিবে। কিন্তু ঘটনার পর ধ র্ষ ণের শিকার ওই নারী পুলিশের কাছে যায় এবং মামলা করে।

ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৬ এবং ৫০৬ ধারা অনুযায়ী মামলা দায়ের হওয়ার পর অভিযুক্তকে গ্রে ফ তা র করে রি মা ন্ডে নিতে হবে। এ ছাড়া ধ র্ষ ণের শিকার নারীকে স্থানীয় সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে যথাযথভাবে তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।

বিমানে অন্য নারীর দিকে তাকানোর কারণে প্রেমিকের মাথায় ল্যাপটপ ভাঙলেন প্রেমিকা

যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামি থেকে লস অ্যাঞ্জেলস যেতে বিমানে চড়েছিলেন এক প্রেমিক-প্রেমিকা জুটি। ঠিকঠাক ছিল সবই। হঠাৎ প্রেমিকার মনে হলো অন্য এক নারীর দিকে তাকিয়ে আছেন প্রেমিক। এর থেকে শুরু বাকবিতণ্ডা। এ পর্যায়ে তার মাথায় ল্যাপটপ ভাঙলেন প্রেমিকা।

এ সময় বিমানের ভেতরে থাকা একজন ঘটনার ভিডিও করেন। সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম গুলোতে।

ভিডিওটিতে দেখা যায়, ওই জুটির চিৎকারে শুনে তাদের কাছে ছুটে যান ফ্লাইট অ্যাটেন্ডার। ঝ গ ড়া থামাতে প্রেমিককে বিমানের সামনের দিকের আসনে চলে যেতে বলেন তিনি।

দেখা যায় প্রেমিকার বকা থেকে বাঁ চ তে তার পাশের আসন থেকে উঠে সামনের দিকে উঠে যাচ্ছেন প্রেমিক। কিন্তু প্রেমিকার রাগ তখনও কমেনি। প্রেমিককে মারতে মারতেই তার পিছন পিছন ছুটে যান তিনি। তারপর হাতে থাকা ল্যাপটপ দিয়ে মারতে থাকেন প্রেমিকের মাথায়।

সংবাদমাধ্যম ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিমানের ভিতর সে সময় যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল তা সামলাতে ওই জুটিকে নামিয়ে দেওয়া হয় বিমান থেকে। তারপর বিমানটি মিয়ামি থেকে উড়ে যায় লস অ্যাঞ্জেলসের উদ্দেশে।