বো মার আ ঘাতে গু রুতর আ হ ত বিজিবি সদস্যের মৃ.. ত্যু

59

বো মার আ ঘাতে গু রু তর আ হ ত বিজিবি- শার্শার পাঁচ ভুলাট সিমান্তে চো কা র বা রীদের নিক্ষিপ্ত বো মা য় গু রু ত্বর আ হ ত হাবিলদার মো: আকমল হোসেন (৫২) সিএমএইচ, ঢাকায় ক্রিটিকাল কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ (২৯ জুলাই) সোমবার সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে মৃ.. ত্যু ব র ণ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

সে শার্শা উপজেলার পাঁচভুলট সীমান্তে টহলে নিয়োজিত ছিলেন (খুলনা ব্যাটালিয়ন ২১ বিজিবি)। যার ব্যচ নম্বর-৫০০৩২। মৃ.. ত্যু কালে তিনি স্ত্রী, তিন কন্যা এবং এক পূত্র সন্তান রেখে গিয়েছেন।

২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক ইমরান উল্লাহ সরকার জানান, হাবিলদার আকমল হোসেন গত ২৬ জুলাই রাত আনুমানিক ২টায় পাঁচভুলট বিওপির একটি নিয়মিত টহল দলের দলাধিনায়ক হিসেবে সীমান্তের ১৭/৭ এস এর ৯৮ আর পিলারের সন্নিকটে চো রা চা লা ন প্রতিরোধী টহলে নিয়োজিত ছিলেন।

ঐ সময়ে দু’টি ভারী ব্যাগ হাতে দু’জন ব্যক্তি এবং আরো কয়েকজন ব্যক্তি টহল দলের দিকে আগুয়ান হতে থাকলে সন্দেহবশত টহল কমান্ডার হাবিলদার মো: আকমল হোসেন তাদেরকে থামার সংকেত দেন। কিন্তু আগুয়ান প্রথম ব্যক্তি না থেমে আকস্মাৎ তার হাতে থাকা ব্যাগটি সজোরে হাবিলদার আকমলের দিকে নিক্ষেপ করে দৌঁড়ে পলায়ন কালে ব্যাগে রক্ষিত হা ত বো মা বিকট শব্দে বি স্ফো রি ত হয়।

এর ফলে বো মা র স্প্লি..ন্টা রে র আ’ঘা’তে হাবিলদার আকমলের সমগ্র শরীর ক্ষ ত বি ক্ষ ত হয়। একটি স্প্লি ন্টা র তার বাঁ চোখের কর্ণিয়া ক্ষ তি গ্র স্থ করে মস্তিস্কে ঢুকে যায়। আ শ ঙ্কা জ নক ভাবে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে অতিদ্রুত যশোর সিএমএইচ-এ প্রেরণ করে।

গত ২৭ জুলাই সকালে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিশেষ ব্যবস্থায় হেলিকপ্টারযোগে তাকে ঢাকা সিএমএইচ-এ প্রেরণ করা হয়। সেখানে তিনি মৃ.. ত্যু র আগ পর্যন্ত নিবিড় পর্যবেক্ষণে চিকিৎসাধীন ছিলেন। সুত্র-বি ডি ২৪ লাইভ।

স্বামীকে ধ.. র্ষ ণে সহায়তা করল স্ত্রী

ময়মনসিংহ ফুলপুরে স্ত্রীর সহায়তায় ১১ বছরের এক শিশুকে ধ.. র্ষ ণ করেছে দুলাল ফকির (৬০) নামে এক বৃদ্ধ। এ ঘটনায় দুলাল ফকিরকে আটক করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় গতকাল রবিবার দুপুরে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে ফুলপুর থানায় ধ র্ষ ণ কারী দুলাল ফকির ও তার স্ত্রী মদিনা খাতুনকে আসামি করে ধ র্ষ ণ মামলা দায়ের করেন। ঘটনাটি ঘটে গত শনিবার উপজেলার রুপসী ইউনিয়নের বাট্টা গ্রামে দুলাল ফকিরের বাড়িতে।

এ ঘটনায় গতকাল রবিবার সকালে দুলাল ফকিরকে রুপসী ইউনিয়নের বাট্টা গ্রামে তার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শিশুটির পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, শনিবার বাট্রা গ্রামের এক দিনমুজুরের মেয়েকে কৌশলে ডেকে তার বসতঘরে নিয়ে ধ র্ষ ণ করে লম্পট দুলাল মিয়া।

এ সময় শিশুটি চি ৎ কা র করতে চাইলে তার মুখ চেপে ধরে ও হ.. ত্যা র হু ম কি দেন তিনি। শিশুটির চি ৎ কা র বাড়ির পার্শ্ববর্তী লোকজন টের পেলে শিশুটির মা-বাবাকে খবর দেন তারা। পরে ধ র্ষ ণ কারীর বসতঘর থেকে শিশুটিকে র ক্তা ক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ফুলপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

পরে তার অবস্থা আ শ ঙ্কা জনক হওয়াই তাকে উন্নত চিকিৎসকরা ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছে শিশুটি। এ কাজে ধ র্ষ ণ কারীর স্ত্রী সহায়তা করেছেন বলেও অভিযোগ করেছেন ধ র্ষ ণে র শিকার শিশু ও তার পরিবারের লোকজন।

ফুলপুর থানার ওসি ইমারত হোসেন গাজী জানান, মামলা হওয়ার সাথে সাথে মামলার আসামি দুলাল ফকিরকে গ্রে প্তা র করা হয়েছে। এ ঘটনায় অপর আ সা মী পলাতক রযেছে। তাকে গ্রে ফ তা রে র চেষ্টা বলেও জানান তিনি।