পাকিস্তানের আকাশসীমায় ঢুকতে পারবেন না ভারতের রাষ্ট্রপতি !

51

পাকিস্তানের আকাশসীমায় ঢুকতে পারবেন না- ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে নিজেদের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি দেয়নি পাকিস্তান। আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি চেয়ে ভারতীয় রাষ্ট্রপতির আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে দেশটি।

পাকিস্তানের প্রভাবশালী গণমাধ্যম ডন ও জিয়ো নিউজ উর্দুর খবরে বলা হয়, আগামীকাল ৮ সেপ্টেম্বর, রবিবার ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ আইসল্যান্ড যাওয়ার জন্য দেশটির পক্ষ থেকে পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। তবে কাশ্মীরে ভারতীয় আ গ্রা স নে র প্র’তি’বা’দে পাকিস্তান তাতে সাড়া দেয়নি।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, ভারতের রাষ্ট্রপতিকে পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহারের অনুমতি দেয়া হয়নি। মাহমুদ কোরেশি বলেন, আমরা খুবই সতর্কতা ও ন্যায়সঙ্গতভাবে ভারতের সঙ্গে কাশ্মীর ইস্যুটি সমাধানের চেষ্টা করেছি।

কিন্তু ভারত শুরু থেকেই হঠকারী মনোভাব দেখিয়েছে। এ জন্য ভারতের রাষ্ট্রপতির পক্ষ থেকে পাকিস্তানের আকাশসীমা ব্যবহারের আবেদন আমরা প্র’ত্যা’খ্যা’ন করেছি। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দিয়ে দিয়েছেন বলেও জানান তিনি। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামা হা ম লা কে কেন্দ্র করে ভারতের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করে দিয়েছিল পাকিস্তান।

পরে ১৬ জুলাই তা আবার চালু করে দেশটি। সম্প্রতি কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে আবারও দুই দেশের মধ্যে উ ত্তে জ না বিরাজ করছে। পাকিস্তান যদি ভারতের জন্য তাদের আকাশসীমা বন্ধ করে দেয়, তাহলে ভারতকে বিরাট আর্থিক ক্ষ’তি’র সম্মুখীন হতে হবে। সুত্র-যুগান্তর।

আসামের নাগরিক তালিকায় নেই চন্দ্রযানের উপদেষ্টা ও পরিবার

আসামীয় বিজ্ঞানী ভারতের দ্বিতীয় চন্দ্রযান অভিযানের উপদেষ্টা ড. জিতেন্দ্র নাথ গোস্বামীর নাম আসামের নাগরিকদের জাতীয় নিবন্ধতে নেই।

গত ৩১ অগাস্ট প্রকাশিত ওই জাতীয় নাগরিক নিবন্ধনের (এনআরসি) চূড়ান্ত তালিকায় আসামের জোরহাটের অধিবাসী এই বিজ্ঞানীর পরিবারের সদস্যরাও ঠাঁই পাননি বলে ভারতীয় কয়েকটি গণমাধ্যম দাবি করে। ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই বিজ্ঞানী ও তার পরিবার নাগরিকদের জাতীয় নিবন্ধে আবেদন করেনি।

জিতেন্দ্রনাথ গোস্বামীর ভাই হিতেন্দ্রনাথ গোস্বামী যিনি আসামের আইনসভার স্পিকার। হিতেন্দ্র গোস্বামী বলেন, তার বিজ্ঞানী ভাই আসামে নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করেননি। তাদের ভোটের অধিকার গুজরাটে রয়েছে। স্পিকার হিতেন্দ্রনাথ বলেন, তিনি গুজরাটে পরিবারসহ স্থায়ীভাবে বসবাস করেন।

সেখানে তাদের ভোটের অধিকার রয়েছে। এনআরসি তালিকার জন্য আমার ভাই আবেদন করেনি। প্রকৃতপক্ষে তিনি এনআরসির জন্য কোনো আগ্রহ দেখাননি। প্রায় চার বছর ধরে যাচাই-বাছাইয়ের পর আসাম সরকার গত শনিবার সকালে ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেন্স-এনআরসির (নাগরিকপঞ্জি) চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করে।

তালিকায় ৩ কোটি ১১ লাখ ২১ হাজার ৪ জন জায়গা পেয়েছেন। বাদ পড়েছেন ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জন, যাদের মধ্যে ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি ফখরুদ্দিন আলি আহমেদের পরিবারের সদস্যসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্বরাও রয়েছেন। ড. জিতেন্দ্র ভারতের মঙ্গলযান কর্মসূচিতে সম্পৃক্ত রয়েছেন। ভারতের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের আয়োজনে সফল ভাবে উৎক্ষেপিত চন্দ্রযান-২ অভিযানের অন্যতম উপদেষ্টাও তিনি।