পরীমনিকে রক্ত দিয়ে ‘আই লাভ ইউ’ লেখা কার্ড পাঠিয়েছিল ছেলেটি

2797

ঢাকাই সিনেমার লাস্যময়ী অভিনেত্রী পরীমনি। নবম শ্রেণিতে পড়ার সময়ই প্রথম প্রেমের প্রস্তাব পান। পরীমনি তখন পিরোজপুর ভগিরাতপুর মাধ্যমিক স্কুলে পড়তেন। ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন তার নানা।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন সুন্দরী এ নায়িকা। প্রথম ভালোবাসা কবে এসেছিল? এমন প্রশ্নের উত্তরে এ নায়িকা বলেন, ‘ক্লাস নাইনে থাকতে প্রথম প্রেম প্রস্তাব পেয়েছিলাম।

জুলিয়া নামে আমার এক বান্ধবীর কাছে জানতে পারি, পাশের গ্রামের এক ছেলে আমাকে পছন্দ করে। মোটরসাইকেল নিয়ে স্কুলের দূরে দাঁড়িয়ে থাকত। এভাবে দাঁড়িয়ে থাকা দেখে ওর প্রতি আমার মায়া হলো।

সিদ্ধান্ত নিলাম, ছেলেটির সঙ্গে কথা বলব। হঠাৎ একদিন ছেলেটি জুলিয়াকে দিয়ে একটা কার্ড পাঠায়। সেখানে রক্ত দিয়ে লেখা, আই লাভ ইউ।’

প্রথম চিঠি পাওয়ার অনুভূতি কেমন ছিল? উত্তরে পরীমনি বলেন, ‘এ অনুভূতি আমার নিজের কাছেই থাক। ভালো লাগার কিছু মুহূর্ত নিজের ভেতর জিইয়ে রাখতে আলাদা আনন্দ আছে। বিরহ বা মজার আনন্দ।’

২০১৫ সালে অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু করেন পরীমনি। ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ সিনেমার মাধ্যমে অভিষেক হয় তার। শুরুর বছরই একডজন সিনেমা মুক্তি পেয়েছিল পরীর।

রীতিমতো ফিল্মপাড়ায় আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন তিনি। বাণিজ্যিক সিনেমার পাশাপাশি সম্প্রতি ভিন্নধারা সিনেমাতেও অভিনয় করছেন লাস্যময়ী এ সুন্দরী। 

পরীমনি যখন সিনেমায় নাম লেখান, তখন থেকেই খবরের শিরোনামে উঠে আসেন তিনি। কারণ, কোনো ছবি মুক্তির আগে ১৮টি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হন এই নায়িকা।

সেই ছবিগুলোর মান নিয়ে প্রশ্ন আছে ঠিকই, কিন্তু পরী ঠিকই উতরে গেছেন। ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের একটা কঠিন সময়ের গল্প তাঁর কাছে জানতে চাই। পরী ফিরে যান বছর পাঁচেক আগে।

বলেন, ‘প্রথম ছবি ভালোবাসা সীমাহীন-এর শুটিংয়ের দিন আমার নানি মারা যান। আমি মেকআপ নিয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াব, ওই সময় মৃত্যুর খবর আসে।

ওই দিনগুলো খুব কঠিন ছিল আমার জন্য। মনে হচ্ছিল আমি আর সামনে এগোতে পারব না। হয়তো আর একটা দিনও চলতে পারব না, খেতে পারব না, ঘুমাতে পারব না। সময়টা অনেক কষ্টের ছিল।’

 এখন, এই সময়ে…

পরীমনির সময়টা এখন বদলেছে। তাঁর বয়ানে স্থিরতা এসেছে ক্যারিয়ারে। গতানুগতিক বাণিজ্যিক ধারার ছবিতে আর না—এমন শপথ নিয়েই শুরু করেছেন বছর। সেই সঙ্গে আছে আরেকটা পরিকল্পনা।

সেটা ব্যক্তিজীবন নিয়ে। চলচ্চিত্রপাড়ায় গুঞ্জন, তিনি নাকি বিনোদন সাংবাদিক তামিম হাসানকে বিয়ে করে ফেলেছেন। সেই গুঞ্জনের জবাব দিতে গিয়েই পরিকল্পনার কথাটা বলে ফেললেন পরী, ‘ইদানীং আমাদের দুই পরিবার বিয়ের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছেন।

একটা সুন্দর সময় ঠিক করে, আয়োজন করে পারিবারিকভাবেই বিয়ে হবে। আমি আমার বংশের বড় মেয়ে আর তামিম তাঁর পরিবারের বড় ছেলে। তবে তামিম আর আমি তো এখনই বিয়ে করতে চাই। হা হা হা…’