জেনে নিন নিমপাতার বিস্ময়কর ৫ টি গুণ

1344

নিমপাতার বিস্ময়কর ৫ টি গুণ- নিমপাতা এমনই এক জাদুকরী ঔষধি যা হাজার বছর ধরে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নিমপাতা এখনও প্রাকৃতিক প্রতিষেধক হিসেবে ব্যবহার করা হয়। শরীরের দুর্বল প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা শক্তিশালী করতে নিমপাতার জুড়ি নেই। এছাড়া এই পাতা থেকে আরও কয়েক ধরণের উপকার পাওয়া যায়।

যেমন

১. ত্বক ও চুলের জন্য নিমপাতা দারুণ উপকারী। নিমপাতা ব্যবহারে ব্রণের সমস্যা দূর হয়। এটি ত্বকের শুষ্কতা দূর করতেও দারুণ কার্যকরী। এছাড়া ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা যেমন- ব্ল্যাকহেডস, বড় ছিদ্র , দাগ দূর করতেও নিম পাতা ব্যবহার করা যায়। নিমপাতায় থাকা অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ফ্যাংগাল উপাদান চুলের খুশকি সমস্যার সমাধান দেয়। এটি চুল পড়া রোধেও কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

২. নিমপাতায় থাকা অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ফাঙ্গাল উপাদান রক্ত পরিশুদ্ধ করে। এটি শরীর থেকে ক্ষতিকর টক্সিন বের করে লিভার ও কিডনি সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। প্রতিদিন ২ টা করে নিমের তৈরি ক্যাপসুল খেলে বিভিন্ন ধরনের টক্সিন থেকে রক্ত পরিশুদ্ধ থাকবে।

৩. রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে নিমপাতা দারুণ কার্যকরী।এ কারণে যেকোন ধরণের সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে এটি ভূমিকা রাখে।নিমপাতা রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করে। এ কারণে এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য উপকারী।

নিয়মিত নিমের তৈরির ক্যাপসুল খেলে ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গুসহ অন্যান্য সংক্রমণ রোগ প্রতিরোধ করা যায়।

৪. নিমে থাকা অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টি-ফাঙ্গাল উপাদান দাঁতের বিভিন্ন সমস্যা কমায়। এটি দাঁতের প্রদাহ সারাতেও কার্যকরী।

৫. নিম হজমের জন্য দারুণ উপকারী। এতে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরী উপাদান পাকস্থলীর নানা সংক্রমণ সারাতে ভূমিকা রাখে।

শুধু মাত্র লেবু রসেই দূর হবে কিডনি পাথর

একটি ফলের রসেই গলবে কিডনির পাথর। অপারেশন ছাড়াই গলবে কিডনির পাথর। শুধু একটি ফলের রসেই কিডনির পাথর দূর হবে! হ্যাঁ, ভুল দেখেননি। বিনা অপারেশনেই আধাকাপ লেবুর রসে কিডনির পাথর দূর হবে। যে ফলটি এখন পাওয়া যায় মাত্র ২ টাকায়।

প্রতি বছর পৃথিবীতে ক্যানসারের চেয়ে বেশি মানুষের মৃত্যু হয় কিডনির সমস্যায়। কিডনি সমস্যার সবচেয়ে বড় কারণ কিডনি স্টোন। খবর জি নিউজের। অতিরিক্ত মাংস খেলেই বিপদ।

কম পানি খেয়েছেন কী মরেছেন। কম সবজি খেলেও সমস্যা। বেশি নুন খাওয়া ক্ষতিকর। বংশগত কারণেও কিডনিতে পাথর হওয়ার আশংকা থাকে।

মাঝে মাঝে ডিহাইড্রেশন হলেও কিডনিতে পাথর তৈরি হতে পারে। ইউরিন ইনফেকশন হলেও কিডনিতে পাথর জমতে পারে। মাইগ্রেনের জন্য ব্যবহৃত টপিরামেট জাতীয় ওষুধ কিডনিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি বাড়ায়।

ওজন বাড়লেও মারাত্মক বিপদ। কিডনির ভেতরের এই পাথরগুলো মূত্রনালির মাধ্যমে মূত্রথলিতে যাওয়ার চেষ্টা করে। পাথর যখন সংকীর্ণ নালির মধ্যে দিয়ে যায়, তখন প্রচণ্ড ব্যথা হয়। কখনও কখনও নালিটি পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। এই অবস্থায় অপারেশন ছাড়া পথ থাকে না।

কিন্তু ইউনিভার্সিটি অব হাউস্টনের গবেষকরা বলছেন, লেবুর রসে হতে পারে মুশকিল আসান। লেবুর রসে হাইড্রক্সিসিট্রেট থাকে। এটা আমাদের শরীরের ক্যালসিয়াম অক্সালেট ক্রিস্টাল গলিয়ে দিতে সাহায্য করে। এই ক্যালসিয়াম অক্সালেট ক্রিস্টালের কারণেই প্রধানত কিডনিতে পাথর হয়।

গবেষকরা বলছেন, দিনে দুবার ৪ আউন্স পাতিলেবুর রস খেতে হবে। ৩২ আউন্স টাটকা লেমোনেডও খাওয়া যেতে পারে। ২ আউন্স লেবুর রসের সঙ্গে ৬ আউন্স পানি মিশিয়ে নিতে হবে। সকালে ব্রেকফাস্টের আগে এবং রাতে শোয়ার আগে লেবুর রস খেয়ে নিতে হবে।

শুধু কিডনির স্টোনই নয়, লেবুর রসে আরও অনেক উপকারিতা আছে।