ছেলেরা কোন ধরনের মেয়ের প্রেমে পাগল ?

3510

রূপ দেখে আকৃষ্ট হওয়া মানুষের সহজাত স্বভাব। তবে সেই আকর্ষণ খুব বেশিদিন থাকে না। আকর্ষণটা যদি হয় গুণের প্রতি, তাহলে তা সহজে নষ্ট হয় না। মেয়েদের সৌন্দর্য দেখে ছেলেরা আকৃষ্ট হয়, যুগে যুগে নারীর সৌন্দর্য নিয়ে অনেক গান-কবিতারও সৃষ্টি হয়েছে।

সেসব অস্বীকারের উপায় নেই। কিন্তু মেয়েদের এমনকিছু স্বভাব বা গুণ আছে যা দেখে ছেলেরা সহজেই প্রেমে পড়ে-

যার অভিযোগ কম-

অনেক মেয়ের ক্ষেত্রেই দেখা যায়, তাদের অভিযোগ অনেক বেশি। সবকিছু নিয়েই খুঁত ধরা, প্যানপ্যানানির স্বভাব। ছেলেরা এমন মেয়ের থেকে দূরে থাকে। তারা বরং সেই মেয়েকেই পছন্দ করে যার অভিযোগ কম, যারা অল্পতেই খুশি থাকতে জানে।

হাসি-

কোনো মেয়ের সুন্দর হাসি দেখে প্রেমে পরবে না এমন ছেলে খুব কমই আছে। তবে সেই হাসি হতে হবে মিষ্টি ও অহংকারমুক্ত। কোনটি নির্মল হাসি আর কোনটি দাম্ভিকতা কিন্তু হাসির ধরণ দেখলেই বোঝা যায়।

মিশুক-

সহজে সবার সঙ্গে মিশতে পারে এমন মেয়ের প্রতি ছেলেরা খুব সহজেই আকৃষ্ট হয়। আপনার আশেপাশেই খেয়াল করুন। এমন কিছু মেয়ে অবশ্যই দেখতে পাবেন যে সবার সঙ্গেই হেসে গল্প করছে। এমন মেয়েকে পছন্দ করার কারণ হলো তারা কখনো অন্যের সঙ্গে দম্ভ নিয়ে কথা বলে না। এরা সব সময়ই ইতিবাচক।

ব্যালেন্স করে চলে-

জীবনে ব্যালেন্স করে চলতে জানাটা ভীষণ জরুরি। অন্যের কোনো ভুল ধরিয়ে দেয়ার পাশাপাশি ভালো অভ্যাসে বাহবাও দিতে জানতে হয়। আর এমন ব্যালেন্স করে চলতে জানা মেয়ের প্রতি ছেলেরা বেশি আকৃষ্ট হয়।

আত্মকেন্দ্রিক নয়-

যেসব মেয়ে শুধু নিজেকে নিয়ে অর্থাৎ নিজের চাকরি, জীবন পরিবার এসব নিয়েই থাকতে পছন্দ করে কিন্তু সমাজ-রাজনীতি, এসব নিয়ে ভাবে না, ছেলেরা তাদের পছন্দ করে না। বরং সব বিষয়ে জ্ঞান নিয়ে চললে ও কথা বললেই ছেলে সেই মেয়ের প্রেমে পড়ে।

মিথ্যাবাদী প্রেমিক চেনার উপায়….

কেউ মিথ্যা বলে একান্ত ঠেকায় পড়ে, কেউবা মিথ্যা বলে কথায় কথায়। একটা সময় এমন হয়, মিথ্যা বলাটাই তার স্বভাব হয়ে দাঁড়ায়। প্রেমিকার কাছে নিজেকে উপস্থাপন করতে গিয়েও কেউ কেউ আশ্রয় নেয় মিথ্যার। কিছু সত্যি হয়তো লুকিয়ে রাখে। অনেক বিষয়েই মন খুলে আলাপ করে না। কখনো কখনো ঠকিয়েও চলে অন্ধভাবে বিশ্বাস করে আসা মানুষটিকে।

আপনার প্রেমিক মিথ্যাবাদী কি না বুঝতে হলে চোখ বুলিয়ে নিন-

যেকোনোকিছু বাড়িয়ে বলা বা অতিরঞ্জিত করে ফুটিয়ে তোলা নিশ্চিত মিথ্যাবাদীর লক্ষণ। সে যদি এমনটা করে এবং আপনি তা বুঝতে পারেন তবে জেনে নিন, সে নিঃসন্দেহে মিথ্যা বলছে। যদি সে তার ব্যক্তিগত কোনো কথা বা জীবনের কোনো গল্প বলতে গিয়ে এমনকিছু শোনায় যা আসলে ঘটেনি বা অনেক রংচং মাখিয়ে উপস্থাপন করে তবে বুঝবেন সে আপনাকে মিথ্যা বলছে। সবসময়ই যদি এমনটা করে তবে সতর্ক হোন।

একসঙ্গে কোনো কাজ করার কথা কিংবা কোথাও যাওয়ার কথা অথচ তার দেখা নেই! মাঝেমধ্যে এমনটা হয়তো হতে পারে। কিন্তু প্রায়ই বিষয়টি ঘটা কিন্তু ভালো লক্ষণ নয়। এভাবে কথা দিয়ে কথা না রাখা উচিত নয়। এরকম হলে তার সঙ্গে সামনাসামনি কথা বলুন।

আপনার সামনে একরকম কথা, সবার সামনে অন্যরকম- এরকম হলে সতর্ক হোন। প্রায়ই যদি সে তার বলা কথা অস্বীকার করে এবং আপনাদের মধ্যে কোনও যৌথ সিদ্ধান্ত হলেও পরে সে তা অস্বীকার করে তবে তার সঙ্গে চলা মুশকিল হয়ে পড়বে।

বেশিরভাগ মিথ্যাবাদীই ঝামেলা এড়ানোর জন্য ছুতো দেখায়। সে কাজে ব্যস্ত ছিল, রাস্তায় খুব জ্যাম ছিল, বাড়িতে কোনো সমস্যা হয়েছে- এসব কথা বলতে থাকে। মাঝেমধ্যে এসব বিষয় ঘটতেই পারে। তবে সবসময় নিশ্চয়ই ঘটবে না। তাই সে সবসময় ছুতো দেখালে একটু সতর্ক হওয়াই ভালো।