ছাদের গাছ কাটা সেই নারীকে আটক করেছে পুলিশ

557

সেই নারী আটক- সাভারের সিআরপি রোডে উন্মাদের মত এক নারীর বাড়ির ছাদের সব গাছ কে’টে সাফ করে দিয়েছিলেন আরেক নারী। এ ঘটনার পর বুধবার (২৩ অক্টোবর) গাছ কাটা সেই নারীকে নিজ বাসা থেকে আটক করেছে পুলিশ। আটক হওয়ার পর ওই নারী বলেন, আমি অনুতপ্ত, ভুল করেছি।

এর আগে ভু’ক্তো’ভো’গী সুমাইয়া হাবিব গাছ কা’টা’র সেই সেই দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করে ফে’স’বু’কে ছেড়ে দিলে তা মুহুর্তেই ভা’ই’রা’ল হয়ে যায়। এক নারী দা হাতে অন্য একজনের তৈরি করা ছাদবাগানের সব গাছ কে’টে সাফ করে দিচ্ছেন!

এ সময় বাগানটির মালিক তার কাছে এ কাজটি না করতে অ’নু’ন’য়-বি’ন’য় করছেন। চোখের সামনেই তিলে তিলে গড়া শখের বাগানটি টুকরো টুকরো হতে দেখছেন তিনি। কিন্তু তার আ’কু’তি, মি’ন’তি’র চুল পরিমাণ অনুভূতিও ওই নারীকে স্পর্শ করছে না।

লাগাতার গাছ কে’টে’ই যাচ্ছেন। তাকে থামাতে পারছে না কেউ। কারণ সঙ্গে তার ছেলে একদল সহযোগী নিয়ে ছাদে উঠেছেন। ওই নারী কেন পরিবেশবান্ধব গাছ কে’টে ফেলছেন? সে প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন ভুক্তোভোগী সুমাইয়া হাবীব নিজেই। গাছগুলো ছাদের পরিবেশ নষ্ট করছে বলেই নাকি এগুলো কে’টে ফেলেছেন ওই নারী।

ঘটনার বিবৃতি দিয়ে সুমাইয়া হাবিব লিখেছেন, কখনো কি শুনছেন মানুষ গাছ অপছন্দ করে? গাছ পরিবেশ নষ্ট করে? এই নারীর গাছ পছন্দ না। তার বক্তব্য আমাদের গাছ ছাদের পরিবেশ ন’ষ্ট করে ফেলছে। তাই এই নারী আমাদের সব গাছ কে’টে ফেলছে। কি অ’প’রা’ধ ছিল গাছের? কি অ’প’রা’ধ ছিল? কেউ বলতে পারবেন? সুমাইয়া আরো লিখেছেন,

আমার মা গাছ অনেক পছন্দ করে, তাই ছাদের এক কোণায় আমরা কিছু গাছ লাগিয়েছিলাম। আর এই নারী আমাদের সঙ্গে শ’ত্রু’তা করে আমাদের লাগানো গাছগুলো কে’টে ফেলল।

এভাবে একজনের লাগানো গাছ কি অন্য কেউ কেটে ফেলতে পারেন? এর জবাবও লিখেছেন সুমাইয়া।

তিনি জানালেন, ওই ভবনে ২টি ফ্ল্যাটের মালিক সুমাইয়া। সবাই যার যার কেনা ফ্লাটে থাকে। ফ্ল্যাটের হিসাব অনুযায়ী ভবনের ছাদেও সবার অধিকার আছে। সেই অধিকার থেকে কিছু গাছ লাগিয়েছেন সুমাইয়া।

তিনি অন্যের জায়গায় গাছ লাগাননি। ছাদের একটি কোণায় এমনভাবে গাছ লাগিয়েছিলেন যা সমস্যার সৃষ্টি তো করবেই না বরং ছাদের শ্রীবৃদ্ধি করবে ও পরিবেশ সুন্দর রাখবে। অথচ উল্টো পরিবেশ ন’ষ্টে’র দায় দিয়ে গাছগুলো কে’টে ফেললেন ওই ভবনের আরেক বাসিন্দা।