খুবই শক্ত অবস্থানে সোনা

82

করোনা মহামারিতে যখন বিশ্বব্যাপী উৎপাদন ও ভোগ ব্যয়ে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে তখন বেশ শক্ত অবস্থান ধরে রেখেছে সোনা। বর্তমানে প্রতিদিনই দাম বৃদ্ধির রেকর্ড ভাঙছে ধাতুটি।

আন্তর্জাতিক বাজার বিশ্লেষণ নিয়ে কাজ করা সংস্থা গোল্ড প্রাইসের তথ্যে দেখা যায়, বুধবার (২৯ জুলাই) বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনার সর্বোচ্চ দাম উঠেছিল ১৯৬৯.১২ ডলার।

তবে, এর পরদিন (৩০ জুলাই) আবার বাজার পড়তির মুখে পড়ে ধাতুটি। বিকেল পর্যন্ত আগের দিনের তুলনায় প্রায় ১৪/১৫ ডলার কমে কেনাবেচা হতে দেখা যায়। 

এর আগের দিন (২৮ জুলাই) প্রতি আউন্স মূল্যবান এই ধাতুর সর্বোচ্চ দাম উঠেছিল ১৯৫৮.১১ ডলার। এর আগে ২৭ জুলাই (সোমবার) সকালেই বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স (এক আউন্স সমান ২৮.৩৫ গ্রাম) সোনার দাম ওঠে ১৯৪৪ ডলারের বেশি।

২০১১ সালে প্রতি আউন্স সোনার দাম উঠেছিল ১৯২১ ডলারে। অর্থাৎ সেদিন দাম বৃদ্ধিতে ৯ বছরের রেকর্ড ভাঙে বাজারে দাপট দেখানো সোনা। 

পরিসংখ্যান বলছে, দর বৃদ্ধির প্রবণতায় আভিজাত্যের প্রতীক এই ধাতুটি প্রতিদিনই ছাড়িয়ে যাচ্ছে আগের দিনের দাম। তবে, দিনের শুরু থেকে কেনাবেচায় বেশ খানিকটা নিম্নমুখী প্রবণতা দেখায়। আবার দিন শেষ করছে নিজের শক্তিশালী অবস্থানের জানান দিয়ে। 

দিনব্যাপী কেনাবেচায় দামের ওঠানামায় সোনা আগে টানা এতদিন এমন অস্থিরতা দেখায়নি বলে দাবি করে আন্তর্জাতিক বাজার বিশ্লেষণ নিয়ে কাজ করা বিশেষজ্ঞ ও গবেষণা সংস্থাগুলো বলছে, নিরাপদ বিনিয়োগের মাধ্যম হিসেবে এই ধাতুতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বৃদ্ধির কারণেই এর দাম বাড়ছে। 

এদিকে, চলতি বছরেই বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স সোনার দাম ২ হাজার ডলার আর আগামী ২ বছরে সাড়ে ৩ হাজার ডলার হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিচ্ছেন বাজার বিশ্লেষকরা। সুত্রঃ সময় নিউজ