কিডনি রোগে আক্রান্ত দুবাই প্রবাসী রাসেল বাঁচতে চায়

344

কিডনি রোগে আক্রান্ত দুবাই প্রবাসী রাসেল- চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার ভুজপুর থানার মুহাম্মদ রাসেল। পরিবারের সুখের কথা চিন্তা করে জীবিকার টানে পাড়ি জমিয়েছিলেন মরুভূমির দেশ দুবাইতে। সেখানে ৭ বছর ভালোভাবেই পার করেছেন তিনি।

কিন্তু পরিবারের মুখে হাসি ফোটানো রাসেল আজ হাসপাতালের বিছানায় পড়ে আছেন। শরীরে তেমন কোনো সমস্যা ছিল না। মাঝে মাঝে পেটে ব্যথা অনুভব করলেও সামান্য ঔষধে সেরে যেত। কিন্তু সামান্য এই ব্যথা আজকে রাসেলের কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ব্যথা ক্রমশ বাড়ছে দেখে মেডিকেল চেকআপ করানোর পর ধরা পড়ে, তিনি অনেকদিন ধরে কিডনি রোগ বাসা বেধেছে। তার ২টি কিডনিই অচল প্রায়। এ অবস্থায় চিকিৎসার জন্য দেশে চলে আসেন রাসেল। বর্তমানে তিনি ন্যাশনাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এদিকে রাসেলের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন প্রায় ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা। অভাব অনটনের সংসারে যা জোগাড় করা সম্ভব নয়। এলাকার বন্ধু সহকর্মীরা সবাই রাসেলের পাশে এগিয়ে আসলেও, এতোগুলো টাকা জোগাড় করা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান আরেক প্রবাসী শাহাদাত হোসেন।

রাসেলকে সুস্থ করে তুলতে দুবাই দূতাবাস এবং প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ চেয়েছে রাসেলের পরিবার। রাসেলের বাবা মুহাম্মদ সেলিম জানান, সরকারি সহায়তা পেলে রাসেল আবারও আগের মতো সুস্থ হয়ে উঠবেন। তাই ছেলের সুস্থতার জন্য প্রবাসীদের কাছে দোয়া এবং সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

সুত্র- জাগো নিউজ।

তুরাগে ট্যাক্সিক্যাব : চালকের পরিচয় মিললেও সন্ধান মেলেনি

সাভারের আমিনবাজার সালেহপুর ব্রিজ থেকে তুরাগ নদে পড়ে যাওয়ার ১৩ ঘণ্টা পরও প্রাইভেটকারটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। ফায়ার সার্ভিসের ডুবরি দল উদ্ধার কাজ চালাচ্ছে। তীব্র স্রোতের কারণে উদ্ধার কাজ ব্যাহত হচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিস জানায়, ডুবরি দলের ৭ সদস্য কাজ করছেন। তবে এখন পর্যন্ত ট্যাক্সিক্যাব বা চালকের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। এদিকে প্রাথমিক ভাবে চালক ও গাড়িটির বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া গেছে। আর্মি ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট পরিচালিত ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসের এক্সিও ২০১২ মডেলের গাড়ি ছিল এটি।

চালকের নাম জিয়াউর রহমান। তার বাড়ি ফরিদপুরের বোয়ালমারিতে। এ বিষয়ে ট্রাস্ট ট্রান্সপোর্ট সার্ভিসের উপ-পরিচালক ফজলুল হক জানান, খবর পেয়ে সকালে ঘটনাস্থলে আসি। চালক জিয়াউর রহমান সাভার থেকে ঢাকায় আসছিলেন। তবে ট্যাক্সিক্যাবে যাত্রী ছিল কি-না সেটা নিশ্চিত নই।

গতকাল রোববার রাত ৮টার দিকে ঢাকাগামী হলুদ রঙের একটি প্রাইভেটকার ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আমিনবাজার সালেহপুর ব্রিজ থেকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তুরাগ নদে পড়ে যায়। ঘটনার পর তীব্র স্রোতের কারণে রাত ১টায় উদ্ধার অভিযান শুরু করে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল।

পরে কোনো সন্ধান না মেলায় রাত ৩টায় উদ্ধার অভিযান স্থগিত করা হয়। সোমবার সকাল থেকে আবারও উদ্ধার অভিযান শুরু হয়েছে।