কাশ্মীর ইস্যুতে সরব হলেও চীনে ২০ লাখ উইঘুর মুসলিমদের নি র্যা তনে নিশ্চুপ ইমরান খান

137

কাশ্মীর ইস্যুতে সরব হলেও চীনে মুসলিমদের- কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয়ায় একের পর এক প্রতিবাদ ও তা নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের কাছে দৌড় ঝাঁপ করে যাচ্ছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তবে চীনে প্রায় ২০ লাখ উইঘুর মুসলিমদের নি র্যা তনের ব্যাপারে একেবারে নিশ্চুপ তিনি।

গত মার্চে ফিন্যান্সিয়াল টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ইমরান খান বলেন, ‘উইঘুর মুসলিমদের নির্যাতনের ব্যাপারে তিনি বেশি কিছু জানেন না। তিনি বলেন, সত্যি কথা আমি ওই সম্পর্কে তেমন কিছুই জানি না। বিশ্বে মুসলিম সম্প্রদায় অনেক খারাপ সময়ের মধ্যে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন ইমরান খান।

কিন্তু সে সময় তিনি চীনে উইঘুর মুসলিমদের ওপর যে নি র্যা তন চালানো হচ্ছে বিষয়টি এড়িয়ে যান। সাক্ষাৎকারে ইমরান খান আরো বলেন, ব্যাপারটি সম্পর্কে আমার যথেষ্ট জানা থাকলে আমি এ ব্যাপারে কথা বলতাম। এ ছাড়া চীনে মুসলিমদের ওপর যে নি র্যা তন চালানো হচ্ছে সে বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমে বেশি কোন খবর নেই বলে উল্লেখ করেন তিনি।

সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিম সম্প্রদায়ের ২০ লাখেরও বেশি মানুষকে এক ধরনের বন্দী শিবিরে আটকে রেখেছে চীন। দেশটি মুসলিমদের ওপর গত কয়েক বছর ধরে নানা অত্যাচার করছে বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়, মিডিয়া ও পশ্চিমা অনেক দেশ অভিযোগ তুলেছে।

গত বছর জাতিসংঘ জানায়, মুসলিম গোষ্ঠী উইঘুরের ১০ লাখ মানুষকে আটক রেখেছে চীন। চীনের অন্যতম বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত পাকিস্তান। পাকিস্তান চীন থেকে বিপুল পরিমাণে অর্থ সহযোগিতা নিয়ে আসছে। এছাড়া কাশ্মীর ইস্যুতে চীন পাকিস্তানের পাশে থাকবে বলে ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছে।

তথ্য সূত্র: ফার্স্ট পোস্ট, ফিন্যান্সিয়াল টাইমস, দৈনিক ইত্তেফাক। ।

আল-আকসার ঈদ জামাতে ইসরায়েলি হা ম লা

জেরুজালেমের পবিত্র মসজিদ আল আকসায় হা মলা চালিয়েছে ইসরায়েলের পুলিশ। এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ঈদের দিনে নামাজরত মুসল্লিদের ওপর চালানো এই হামলায় ডজন খানেক মানুষ আহত হয়েছেন। মসজিদটি ইসলাম ধর্মের অন্যতম পবিত্র স্থান। এএফপি, হুরিয়াত ডেইলি।

ফ্রান্স ভিত্তিক বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, আল আকসা মসজিদে ইসরায়েলের পুলিশ অতর্কিতে হামলা চালায়। মুসল্লিদের ওপর ইসরায়েলি পুলিশ হামলা চালালে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে অনেক মুসল্লি আহত হন। তবে আহতের সংখ্যাটা তারা নিশ্চিত করেনি।

তুরস্ক ভিত্তিক হুরিয়াত ডেইলি জানায়, এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে ইসরায়েলের পক্ষ থেকে কিছু জানানো হয়নি।

জেরুজালেমের ইসলামিক ওয়াকফ জানায়, ইসরায়েলের পক্ষ থেকে সেখানে তাদের কথিত পবিত্র স্থান ধ্বংস করার বার্ষিকী পালনের কথা বলা হয়। তাই ঈদ জামাত এক ঘণ্টা এগিয়ে আনা হয়। তবুও হামলাটি চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী।